টুঙ্গিপাড়ায় জমি সংক্রান্তে বিরোধের জেরে প্রসূতি নারী ও শিশু সহ আহত- ৬


কে এম সাইফুর রহমান, গোপালগঞ্জ।। গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়া উপজেলার গোপালপুর ইউনিয়নের গোপালপুর গ্রামে জমি-জমা সংক্রান্তে পূর্ব বিরোধের জের ধরে আপন জ্যাঠাতো ভাই, জ্যাঠা, জ্যাঠাতো ভাই বউ ও তাদের আত্মীয়-স্বজনদের হামলায় নারী-পুরুষ ও সদ্যজাত শিশু সহ-৬ জন আহত হয়েছেন।
বৃহস্পতিবার (৪ জুন) বিকাল আনুমানিক ৩ টায় হামলার এ ঘটনা ঘটেছে।
ভুক্তভোগী ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, টুঙ্গিপাড়া উপজেলার গোপালপুর ইউনিয়নের গোপালপুর গ্রামের ফনি ভূষণ বালার পুত্র অজিত বালা পূর্ব পরিকল্পিতভাবে গায়ে পড়ে ঝগড়া বাধানোর উদ্দেশ্যে তার আপন জ্যাঠা ননী গোপাল বালার ঘর সংলগ্ন জায়গা থেকে জোর করে মাটি কেটে নেয় এবং ওখানে অসীম বালার থাকা একটি ভ্যান জোর করে ফেলে দেয়। এ সময় ননী গোপাল বালার ছেলে অসীম বালা জ্যাঠাতো ভাইকে তাদের ভিটেবাড়ি থেকে মাটি কাটতে নিষেধ করে। এরই এক পর্যায়ে জ্যাঠাতো ভাই অজিত বালা (৪০), তার বউ শিমু বালা (৩২), বাবা ফনি ভূষণ বালা (৬৫), সহ অন্যান্য লোকজন অসীম বালা (৩৬) কে দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র দিয়ে মারপিট করে আহত করে। এ সময় ঠেকাতে এসে তার বাবা ননী গোপাল বালা (৬০) তার মা সখা বালা (৫৫), স্ত্রী শ্যামলী বালা (২৪), মেয়ে পিউ বালা (১১ মাস) গুরুতর আহত হন। তাদের চিৎকার শুনে ঘরে থাকা সদ্য প্রসূতি বোন (সিজারিয়ানের রোগী) রাজলক্ষী (২২) ঠেকাতে গেলে অজিত বালা তার জ্যাঠাতো বোনকে নির্দয়ভাবে পেটে লাথি-ঘুসি দেওয়া সহ বেদম প্রহার করে এবং তার গলায় থাকা স্বর্ণের চেইন ছিনিয়ে নিয়ে তাকে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। পরে তাদের আত্মচিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে এসে ঝগড়া-বিবাদ থামানোর চেষ্টা করে। পরে স্বজনেরা গুরুতর আহত সিজারের রোগী লক্ষ্মীরানী ও তার ভাই অসীম বালাকে গোপালগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেন। এ ব্যাপারে ভুক্তভোগীর পরিবারের পক্ষ থেকে টুঙ্গিপাড়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।
উল্লেখ্য, অজিত বালা পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতে বসবাস করে। প্রায়শই পাসপোর্ট ছাড়া বাংলাদেশে আসে। এসে এধরনের তান্ডব চালায়। এছাড়াও অজিত বালার বিরুদ্ধে গ্রামের দিনমজুর শ্রেণির লোকজনকে লোভ-লালসা দিয়ে ভারতে নিয়ে গিয়ে শ্রমিকের কাজ করিয়ে তাদেরকে ন্যায্য পারিশ্রমিক না দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে।
ভুক্তভোগীরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও প্রশাসনের নিকট দোষীদের দ্রুত আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদানের জোর দাবি জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *