পাথরঘাটায় দীর্ঘ বিদ্যুৎ ভোগান্তিতে উপজেলা নির্বাচনের স্বস্তি হারাচ্ছে সাধারণ জনগণ 


ইব্রাহীম খলীল, বরগুনা।। বরগুনার পাথরঘাটায় দীর্ঘদিনের বিদ্যুৎ সংযোগ না থাকার ভোগান্তিতে জনমনে স্বস্তি নাই চলমান উপজেলা পরিষদের নির্বাচন নিয়ে। চাহিদা অনুযায়ী বিদ্যুৎ না থাকায় গরমে অতিষ্ঠ জীবন-যাপনে জীবিকা নির্বাহ চলছে সাধারণ মানুষের। প্রলয়ংকরী ঘূর্ণিঝড় রেমাল এর প্রভাবে গত ২৬ ও ২৭ মে দীর্ঘস্থায়ী আঘাতে বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে পাথরঘাটা উপজেলার বিদ্যুৎ সংযোগ, তারের ওপরে গাছ, বৈদ্যুতিক খুঁটি উপছে পড়া, ঘরবাড়ি বিপর্যস্ত ও বাঁধ ভেঙে প্লাবিত হওয়া সহ নানান ক্ষতির সম্মুখীন হয়ে পড়ে উপজেলার হাজার হাজার পরিবার।
তৃতীয় ধাপের ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদের নির্বাচন গত ২৯ মে পাথরঘাটা উপজেলায় অনুষ্ঠিত হওয়ার নির্দেশনা থাকলেও ঘূর্ণিঝড় রেমাল এর কারনে স্থগিত করে আগামী ৯ জুন নতুন নির্দেশনা দেন বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন। একদিকে উপজেলা নির্বাচনের প্রচার-প্রচারণা অন্য দিকে বিদ্যুৎ না থাকায় ভোগান্তিতে গ্রামাঞ্চলের সাধারণ জনগণ। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও হাট-বাজার চায়ের দোকানে নির্বাচনের আলোচনার চেয়ে দীর্ঘদিন বিদ্যুৎ সংযোগ না থাকার সমালোচনা বেশি চলছে।
ঘূর্ণিঝড় রেমাল এর আঘাতের ৩/৪ দিন পরে পাথরঘাটা সদরের কিছু এলাকা ও উপজেলার বড় বড় কিছু বাজারে সংযোগ দেয় পিরোজপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও হাট-বাজারের আলোচনায় জানা যায় যে, দীর্ঘ ১১/১২ দিনেও বিদ্যুৎ এর দেখা মেলেনি উপজেলার পদ্মা, হরিণঘাটা, গহরপুর, হোগলাপাশা, মুন্সিরহাট, কাকচিড়া বাইনচটকী, রায়হানপুর পূর্ব লেমুয়া সহ উপজেলার অনেক এলাকায়। কিছু কিছু এলাকায় গ্রাহক প্রতি ৫০/১০০ করে টাকা আদায়ের বিনিময়ে সংযোগ দেন স্থানীয় ইলেক্ট্রিশিয়ানরা, জানা যায় যে সকল এলাকায় টাকা না দেয় সেখানে দেখা মেলে না বিদ্যুৎ সংযোগের।
সংযোগ দিলেও দিনে-রাতে সবমিলিয়ে ৪/৫ ঘন্টার বেশি বিদ্যুৎ থাকে না প্রায় এলাকায়, এতে সমস্যার সম্মুখীন হয়ে পড়ছে এলাকার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান সহ নানান পেশার বিদ্যুৎ মুখী জনগণ, এছাড়াও চরম ভোগান্তিতে অসুস্থ হয়ে পড়ছে ছোট ছোট শিশু ও বয়স্ক রুগ্ন মানুষগুলো। বিদ্যুৎ এর চরম ভোগান্তিতে মানসিকভাবে নির্বাচনের কোন আমেজ নাই বলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও বিভিন্ন জায়গায় মত প্রকাশ করছেন সাধারণ জনগণ।
তারা বলেন নির্বাচনের পূর্বে জনপ্রতিনিধিরা জনগণকে শান্তিতে রাখার নানান অঙ্গিকার করেন, অথচ বর্তমানে বিদ্যুৎ এর ভোগান্তিতে কিভাবে আমাদের দিন কাটছে তার কোন খোঁজ নেয় না নির্বাচিত ও আশাবাদী জনপ্রতিনিধিরা। ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার পরেও টাকার বিনিময়ে নিতে হচ্ছে বিদ্যুৎ এর সংযোগ। শান্তির আশায় ভোট দিয়ে নির্বাচিত করলাম কিন্তু তাদের এ ব্যপারে কোন ভূমিকা দেখছি না। এ দিকে স্বল্প সময়ে বিদ্যুৎ সংযোগ এর নামে এলাকায় টাকা আদায়ের কোন নির্দেশনা নাই বলে জানিয়েছেন পিরোজপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির পাথরঘাটা জোনাল অফিস।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *