মিথ্যা ও গুজবরোধে সাকমিডের বৈঠক অনুষ্ঠিত


মো. খোকন,  ব্রাহ্মণবাড়িয়া|| সোশ্যাল মিডিয়ায় গুজব ও অপতথ্য প্রতিরোধে জনসচেতনতা বৃদ্ধি লক্ষ্যে সাইবার আইন কাজে লাগাতে বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে আলোচনা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন নেদারল্যান্ডের রাষ্ট্রদূত থাইজ উইডস্ট্রা। বৃহস্পতিবার (৪ জুলাই) দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেস ক্লাবে সাউথ এশিয়া সেন্টার ফর মিডিয়া ইন ডেভেলপমেন্ট (সাকমিড) আয়োজিত বৈঠকে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা জানান।

অনুষ্ঠানে বক্তারা জানান, গুজবের শহর এই ব্রাহ্মণবাড়িয়া। কোন একটা বিষয়ে ঘটনা ঘটলেই সেটা সত্য-মিথ্যা যাচাই না করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিশেষ করে ফেসবুকের মাধ্যমে গুজব বেশি ছড়িয়ে দেয়। এর ফলে নানা অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটতে দেখা যায় যা আমাদের কাম্য নয়। এ অবস্থা থেকে উত্তরণে তৃণমূল পর্যায়ে জনসাধারণের মাঝে সচেতনতা বৃদ্ধির তাগিদ দেওয়া হয়। উক্ত বৈঠকে সমাজের বিভিন্ন পর্যায়ের মোট ৫৪ জন প্রতিনিধি  এ সভায় উপস্থিত ছিলেন। সাকমিড থেকে প্রাপ্ততথ্য থেকে জানা যায়, গুজব, ভুল ও অপতথ্য রোধে এ প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে। এরই আওতায় গত বছরের অক্টোবর থেকে ঢাকা, ময়মনসিংহ ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় কাজ করছে সাকমিড। আগামী সেপ্টেম্বর নাগাদ প্রকল্পের কাজ চলমান থাকবে বলে জানানো হয়।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে সাকমিডের ডেপুটি ডাইরেক্টর সৈয়দ কামরুল হাসান, সিনিয়র পলিসি এডভাইজার নামিয়া আক্তার, জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারি অধ্যাপক আদনান ফাহাদ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ অমৃত লাল সাহা, ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেস ক্লাবের সাধারন সম্পাদক মো. বাহারুল ইসলাম মোল্লা, জেলা পরিষদ সদস্য রুমানুল ফেরদৌসি, নারী নেত্রী ফারহানা মিলি, সাংবাদিক আ ফ ম কাউছার এমরান, দৈনবক কালের কন্ঠের জেলা প্রতিনিধি বিশ্বজিৎ পাল বাবু, দৈনিক  প্রথম আলোর মো শাহাদাৎ হোসেন, খবরের কাগজের  জুয়েল রহমান, এনজিও নেতা এস এম শাহীন, সমাজকর্মী শামীম আহমেদ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। বৈঠকে বক্তারা এ উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *