শেরপুরে নিম্নমানের সড়ক নির্মাণের অভিযোগে প্রকৌশলী ও ঠিকাদারের বিরুদ্ধে মানববন্ধন


মো. আরিফুর রহমান,শেরপুর।। শেরপুরে প্রকৌশলী এবং ঠিকাদারের আঁতাতে নিম্নমানের সড়ক নির্মাণের প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী। ০২ জুন  রবিবার দুপুরে শেরপুর  সদর উপজেলার বাজিতখিলা ইউনিয়নের মধ্যকুমরী পাঁচ রাস্তার মোড়ে  এলাকাবাসীর আয়োজনে ওই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।
মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের (এলজিইডি) অধীনে প্রায় ৪ কোটি টাকা ব্যয়ে সদর উপজেলার “বাজিতখিলা বাজার হতে গাজীরখামার বাজার পর্যন্ত সংযোগ সড়কের” “বাজিতখিলা বাজার হতে খরখরিয়া বাজার পর্যন্ত” সড়কের সাড়ে তিন কিলোমিটার অংশের নির্মাণ কাজ চলছে। কাজটির নির্মাতা প্রতিষ্ঠান মেসার্স আক্রাম এন্টারপ্রাইজ। কিন্তু নির্মাণাধীন সড়কের বিভিন্ন অংশে নিম্নমানের বিটুমিন ও নির্মাণ সামগ্রী দিয়ে কার্পেটিং করা হচ্ছে। ফলে নির্মাণ কাজ শেষ না হতেই সড়কের কার্পেটিং ওঠে যাচ্ছে।
এতে এলাকাবাসী সড়ক যোগাযোগ উন্নয়নের কাঙ্ক্ষিত সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। সংশ্লিষ্ট প্রকৌশলীর সঙ্গে আঁতাতের মাধ্যমে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান নিম্নমানের কাজ করছে বলে দাবি করেন বক্তারা।  দরপত্রে উল্লেখিত যথাযথ মানের নির্মাণ সামগ্রী দিয়ে সড়কটির কাজ করার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট দাবি জানান বক্তারা।
তবে অভিযোগ অস্বীকার করে ঠিকাদার মো. আকরাম হোসেন বলেন, দরপত্র অনুযায়ী ল্যাবে পরীক্ষিত নির্মাণসামগ্রী ও উপকরণ দিয়ে সড়কটির নির্মাণ কাজ করা হচ্ছে। একটি চক্র তাঁর কাছে চাঁদা দাবি করেছিল। তাঁদের দাবি পূরণ না করায় তাঁরা ষড়যন্ত্র মূলকভাবে মিথ্যা অপপ্রচারের মাধ্যমে তাঁর সুনাম ক্ষুণ্ন করছেন বলে দাবি করেন তিনি।
অপরদিকে এলজিইডি, শেরপুরের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. মোস্তাফিজুর রহমান ভোরের বানীকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে  বলেন, ঠিকাদারের সঙ্গে আঁতাতের প্রশ্নই ওঠে না। যথাযথ  তদারকির মাধ্যমে সড়কটির নির্মাণ কাজ করা হচ্ছে। তথাপি নির্মাণ কাজে কোন ত্রুটি থাকলে নিয়মানুযায়ী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
মানববন্ধনে অনান্যদের মাঝে  উপস্হিত ছিলেন  বাজিতখিলা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি সাদ্দাম হোসাইন, সাবেক সহসভাপতি সাখাওয়াত হোসেন, ভেটেনারী  চিকিৎসক জহুরুল ইসলাম লিটন প্রমুখ বক্তব্য দেন। এসময়  ভক্তারা উল্লেখিত বিষয়ের সুষ্ঠ তদন্ত মাধ্যমে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট দপ্তর ও কর্মকর্তাদের অনুরোধ জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *