কারা আছে এনডিএতে, চন্দ্রবাবু-নীতিশ ছাড়া আর কাদের হাত ধরবে বিজেপি


সদ্য সমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনের প্রচারে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি তথা বিজেপি নেতৃত্ব বার বার ঘোষণা করেছেন—‘অব কি বার ৪০০ পার’ (এবার চারশ’র বেশি আসনে জয় চাই)। শুধু তা-ই নয়, মোদি তথা বিজেপি নেতৃত্ব দাবি করেছিলেন, বিজেপি একাই ৩৭০ পেরিয়ে যাবে। এক ধাপ এগিয়ে মোদি সেই দাবি করেছিলেন একেবারে লোকসভার ভেতরে!
কিন্তু সেই লোকসভাতেই এ বার মোদীকে যেতে হবে একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারিয়ে। ৩৭০ তো নয়ই, বিজেপি একা ২৫০ আসনের গণ্ডিও পার করতে পারেনি। ফলে সরকার গড়তে মোদী-শাহকে তাকিয়ে থাকতে হবে জাতীয় গণতান্ত্রিক জোট বা এনডিএ’র অন্য শরিকদের দিকে।
যদিও ভোটে জিতে সরকার গড়ার ব্যাপারে মোদীকে বেশ আত্মবিশ্বাসী দেখিয়েছিল। কবে নতুন সরকারে মোদী প্রধানমন্ত্রী হিসাবে শপথ নেবেন, তার দিনক্ষণ এখনও স্পষ্ট নয়। শোনা যাচ্ছে, সপ্তাহান্তেই শপথ নিতে পারেন তিনি।
তবে এনডিএ যে কেন্দ্রে সরকার গড়ছে তা নিশ্চিত করেছেন মোদি। ভোটের ফলপ্রকাশের পর মোদি তার ভাষণে বলেন, ‘তৃতীয় বার এনডিএ-র সরকার গঠন নিশ্চিত। মানুষ পূর্ণ বিশ্বাস রেখেছে বিজেপি এবং এনডিএ’র ওপর।’
মঙ্গলবার রাতে মোদীর আগাগোড়া ভাষণে বিজেপির থেকে বেশি গুরুত্ব পেয়েছে এনডিএ, যা বিস্মিত করেছে ভারতের অধিকাংশ রাজনীতি বিশ্লেষককে। ভাষণে মোদি বার বার এটাই বোঝাতে চেয়েছেন, শরিকদের নিয়েই সরকার গড়বেন তিনি।
কিন্তু মোদি তথা বিজেপি নেতৃত্বকে যতটা আত্মবিশ্বাসী দেখাচ্ছে, সরকার গড়ার অঙ্কটা কি এতটাই সহজ? মুখে সরকার গড়ার ব্যাপারে কথা বললেও মোদী-শাহেরা কি একটুও চিন্তিত নন? মঙ্গলবার বিকেলের পর থেকেই সেই সব প্রশ্নই ঘুরছে রাজনৈতিক মহলে।
বিজেপির বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য ঠিক এক বছর আগে জোটবদ্ধ হয় ভারতের বিরোধী দলগুলো, গঠন করে নিজেদের জোট ইন্ডিয়ান ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক ইনক্লুসিভ অ্যালায়েন্স (ইনডিয়া)। ২০২৪ লোকসভা নির্বাচনে সেই জোটই লড়াই করেছে দেশ জুড়ে। কোনও রাজ্যে আসন সমঝোতা করে লড়েছে, আবার কোনও রাজ্যে একাই লড়েছে জোটের শরিকেরা।
এই ইনডিয়া জোটই এ বারের নির্বাচনে ধাক্কা দিয়েছে বিজেপি তথা এনডিএকে। মোদীর ‘৪০০ পারের’ স্বপ্ন ভেঙে চুরমার করে দিয়েছে ইনডিয়া। ভোটের ফলাফল অনুযায়ী, ইনডিয়ার ঝুলিতে রয়েছে ২৩০-২৩৫টি আসন। অর্থাৎ সরকার গড়ার জাদুসংখ্যা ২৭২ থেকে বেশি দূরে নেই তারাও।
রাজনৈতিক মহলের মতে, ভোটপর্ব মিটতেই শুরু হতে পারে জোট ভাঙানোর খেলা। এনডিএ থেকে যদি ৪০-৪৫ জন সাংসদকে ইনডিয়া জোটে আনতে পারে, তবে বিরোধীরাই সরকার গড়ার ব্যাপারে এগিয়ে যাবে।
কী অঙ্কে ইনডিয়া জোটের সরকার গড়ার সম্ভাবনা রয়েছে, সেই আলোচনায় যাওয়ার আগে জেনে নেওয়া যাক এনডিএ কী। কোন কোন দল রয়েছে এই জোটে?
১৯৯৮ সালে গঠিত হয় এনডিএ। কংগ্রেস এবং তার সহযোগী দলগুলোর বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য তৎকালীন বিজেপি নেতৃত্ব ঠিক করেন জোটবদ্ধ হয়ে লড়বেন। এনডিএ জোট গঠনের মূল উদ্দেশ্য ছিল কেন্দ্রের কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন সরকারকে গদিচ্যুত করা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *